ঢাকারবিবার, ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কোকাকোলার বদলে কুলকোলা, সঙ্গে স্ট্রিট ও ফ্যান্সি পান করছে রাশিয়ানরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
মে ২৪, ২০২২ ৯:৪০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ইউক্রেনে আগ্রাসনের জেরে কোকাকোলা, ফান্টা এবং স্প্রাইটের মতো সুপরিচিত কোমল পানীয়ের ব্র্যান্ডগুলো রাশিয়ার বাজার ছেড়ে যাওয়ায় এসবের বিকল্প পানীয় বাজারে এনেছে ওচাকোভো নামের একটি রুশ কম্পানি ।

মস্কো টাইমস জানিয়েছে, রাশিয়ার পানীয় কম্পানি ওচাকোভো কোকাকোলা, ফান্টা এবং স্প্রাইটের বিকল্প হিসেবে কুল-কোলা, ফ্যান্সি এবং স্ট্রিট নামের তিনটি কোমল পানীয় বাজারে আনার ঘোষণা দিয়েছে।

অবশ্য, কোকাকোলার পণ্যগুলো এখনও রাশিয়ার বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু কোকাকোলা রাশিয়া থেকে বের হয়ে আসার ঘোষণা দেওয়ার পর তাদের পণ্যগুলোর দাম প্রায় ২০০% বেড়ে আকাশচুম্বী হয়ে গেছে।

ওচাকোভো তাদের ওয়েবসাইটে লিখেছে, তাদের তৈরি কুলকোলার স্বাদ কোকাকোলার মতোই। আর কমলার গন্ধযুক্ত ‘ফ্যান্সি’ ও লেবু-যুক্ত ‘স্ট্রিট’ নামের পানীয় দুটো ফান্টা এবং স্প্রাইটের বিকল্প।

আগে থেকেই পশ্চিমা দেশের ঠান্ডা পানীয় বর্জনের চেষ্টা চালিয়েছিল রাশিয়া। বিদেশি পণ্যের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে দেশীয় পণ্যের বাজার চালু করতে চেয়েছিল। কিন্তু পেপসি আর কোকাকোলা কোম্পানির জন্য তা সম্ভব হচ্ছিল না। ইউক্রেনের যুদ্ধের জেরে পেপসি কোম্পানি বাজার ছেড়ে যাওয়ায় রুশ কোম্পানিগুলোর জন্য পরীক্ষা চালানো সহজ হয়ে গেছে।

মস্কো টাইমস জানায়, ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালানোর জেরে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার দরুন মার্চ মাসে রাশিয়ায় ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড স্থগিতের ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র কেন্দ্রীয় কোমল পানীয় প্রস্তুতকারী কোম্পানিগুলো। এরপর থেকেই রুশ বাজার থেকে এক রকম হাওয়া হয়ে যায় এসব কোমল পানীয়। রাশিয়ার কোনো কোনো জায়গায় কোকাকোলার পণ্য এখনো পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু দাম তিন মাসে ২০০ শতাংশ বেড়ে গেছে।

ওচাকোভো মূলত শস্য-ভিত্তিক কেভাস এবং কম-অ্যালকোহলযুক্ত মধু পানীয় মেদোউখার মতো কিছু ঐতিহ্যবাহী রাশিয়ান পানীয় তৈরি করে থাকে। সে হিসেবে তাদের অভিজ্ঞতা ও বাজার দুটোই আগে থেকে রয়েছে। যুদ্ধের জেরে আন্তর্জাতিক পানীয় কোম্পানিগুলো চলে গেলে সেটি কাজে লাগানোর চেষ্টা চালায় প্রতিষ্ঠানটি।

ওচাকোভোর আগে অবশ্য আরো দুটি কোম্পানি পানীয় বাজারে ছাড়ার চেষ্টা করেছে। কিন্তু কোনোভাবেই সেগুলো মূল পণ্যের বিকল্প হয়ে উঠতে পারেনি। সে জায়গায় ওচাকোভো অনেকটাই এগিয়ে গেছেন। গ্রাহকরা হাতে তুলে নিচ্ছেন কুলকোলা, স্ট্রিট ও ফ্যান্সি।