ঢাকাবুধবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অর্পিতার দুই বাসা থেকে ৫০ কোটি রুপি, ৫ কেজি সোনা উদ্ধার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
জুলাই ২৮, ২০২২ ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

কলকাতায় গ্রেপ্তার হওয়া পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ সহযোগী অর্পিতা মুখার্জির দ্বিতীয় ফ্ল্যাট থেকে নগদ প্রায় ২৯ কোটি রুপি ও পাঁচ কেজি সোনার গয়না উদ্ধার করা হয়েছে।

স্কুলে চাকরি কেলেঙ্কারির জেরে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) পরিচালিত অভিযানে এসব নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়।

তদন্ত সংস্থার কর্মকর্তারা ১৮ ঘণ্টার দীর্ঘ অভিযান শেষ করার পর আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে কলকাতার বেলঘরিয়া এলাকায় অর্পিতা মুখার্জির বাড়ি থেকে ১০ ট্রাঙ্ক ভর্তি নগদ নিয়ে যায়।

সূত্র বলছে, ইডি কর্মকর্তারা অর্পিতা মুখার্জির দ্বিতীয় ফ্ল্যাট থেকে জব্দ করা অর্থের সঠিক পরিমাণ জানতে তিনটি নোট-গণনার মেশিন ব্যবহার করেন।

গত ২৩ জুলাই পার্থ চ্যাটার্জি এবং অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগের দিন প্রথম ধাপে অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ উদ্ধার করে ইডি।

গত সপ্তাহের অভিযানে তদন্ত সংস্থার কর্মকর্তারা অর্পিতা মুখার্জির আরেকটি ফ্ল্যাট থেকে ২১ কোটি রুপি নগদ, বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা এবং দুই কোটি রুপির সোনার বার উদ্ধার করে।

এছাড়া ইডি প্রায় ৪০ পৃষ্ঠার নোটসহ একটি ডায়েরিও খুঁজে পেয়েছে, যা তদন্তে গুরুত্বপূর্ণ সহায়ক হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত অর্পিতা মুখার্জির দুটি বাড়ি থেকে নগদ ৫০ কোটি রুপি উদ্ধার করা হয়েছে। কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথিও জব্দ করা হয়েছে, যা কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা করছে।

রাজ্যের একটি স্কুলে চাকরি কেলেঙ্কারির সঙ্গে সম্পর্কিত মানি লন্ডারিং মামলায় তদন্তের অংশ হিসেবে এই অভিযান চালায় ইডি।

পার্থ চ্যাটার্জি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভার সিনিয়র মন্ত্রী এবং তার ঘনিষ্ঠ মিত্র। তার বিরুদ্ধে শিক্ষামন্ত্রী থাকাকালে একটি সরকারি স্কুলে শিক্ষক ও কর্মচারীদের অবৈধ নিয়োগে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

অর্পিতা মুখার্জি তদন্তকারীদের বলেছেন, বদলি এবং কলেজগুলোকে স্বীকৃতি পেতে সহায়তা করার জন্য ঘুষ নেওয়া হয়েছিল।

তিনি বলেন, পার্থ আমার এবং অন্য এক নারীর বাড়িকে মিনি-ব্যাংক হিসেবে ব্যবহার করেছে। সেই নারীও তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু।

গত সপ্তাহে বিরোধীদের তোপের মুখে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেপ্তারের বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, তিনি দুর্নীতিকে সমর্থন করেন না এবং অপরাধ প্রমাণ হলে গ্রেপ্তার হওয়া মন্ত্রীকে শাস্তি দেওয়া উচিত।

তিনি বলেন, যদি কেউ দোষী প্রমাণিত হয়, তবে তাকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। তবে আমি আমার বিরুদ্ধে যেকোনো বিদ্বেষমূলক প্রচারণার নিন্দা জানাই। সময়ের সঙ্গে সত্য বেরিয়ে আসবেই।

সূত্র : এনডিটিভি