ঢাকাশুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

দেশ রূপান্তরের সম্পাদক অমিত হাবিব মারা গেছেন

ঢাকা কনভারসেশন ডেস্কঃ
জুলাই ২৯, ২০২২ ১১:১১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

‘দৈনিক দেশ রূপান্তর’ পত্রিকার সম্পাদক অমিত হাবিব মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাত ১১টায় নিউরোসাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দেশ রূপান্তরের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা মামুন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) অমিত হাবিব অসুস্থ হয়ে পড়লে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে বিআরবি হাসপাতালে ভর্তি করে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) নেওয়া হয় তাকে। অবস্থার আরো অবনতি হলে নিউরোসাইন্স হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

সাংবাদিক অমিত হাবিবের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রেস উইং থেকে পাঠানো শোক বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রচারবিমুখ সাংবাদিক অমিত হাবিব ২০০৯ সালে কালের কণ্ঠে নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে যোগ দেওয়ার পর পত্রিকাটি প্রকাশে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন। অল্প সময়ের মধ্যেই রেকর্ড গড়ে প্রচারসংখ্যা আড়াই লাখ ছাড়িয়ে যাওয়া এ পত্রিকায় ২০১৩ সাল থেকে উপদেষ্টা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন অমিত হাবিব। ২০১৭ সালের ১ ফেব্রুয়ারি তিনি কালের কণ্ঠ ছেড়ে দেশ রূপান্তর পত্রিকার সম্পাদক পদে যোগ দেন।

অমিত হাবিব গত ২১ জুলাই অফিসে কর্মরত অবস্থায় হঠাত্ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, অমিত হাবিব মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাকে আইসিইউতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। এর আগে ২০২০ সালেও স্ট্রোক করেছিলেন অমিত হাবিব। পরে সুস্থ হয়ে আবার কাজে যোগ দেন। এবার হাসপাতালে ভর্তির পর প্রাথমিকভাবে তিনদিন পর্যবেক্ষণে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় তাকে হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল। সেখান থেকেই তিনি গতরাতে চলে গেছেন না ফেরার দেশে।

সাংবাদিকতায় তিন দশকের বেশি অভিজ্ঞতাসম্পন্ন অমিত হাবিবের কর্মজীবন শুরু ১৯৮৭ সালে খবর গ্রুপ অব পাবলিকেশন্সে একই সঙ্গে রিপোর্টার ও সাব-এডিটর হিসেবে। পরে সাপ্তাহিক পূর্বাভাস পত্রিকায় সাব-এডিটর পদে যোগ দেন তিনি। ওই সময় সহসম্পাদনার পাশাপাশি রাজনীতি ও টেলিভিশন নাটক বিষয়ে নিয়মিত লিখতেন তিনি। পরে ১৯৯১ সালে সিনিয়র সাব-এডিটর হয়ে যোগ দেন দৈনিক আজকের কাগজ পত্রিকায়। পরের বছর একই পদে যোগ দেন দৈনিক ভোরের কাগজে। অল্প দিনের মধ্যে পদোন্নতি পেয়ে যুগ্ম বার্তা সম্পাদক ও পরে বার্তা সম্পাদক হন তিনি।

২০০৩ সালে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকায় প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন খ্যাতিমান এই সাংবাদিক। তবে পত্রিকাটি বাজারে আসে ২০০৬ সালে। পত্রিকাটি প্রকাশে মূল ভূমিকা পালনকারী অমিত হাবিব পত্রিকা প্রকাশের ছয় মাসের মধ্যে সম্পাদক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতাদর্শগত বিরোধের কারণে যায়যায়দিন ছাড়েন। ২০০৭ সালে চীনের আন্তর্জাতিক বেতারে বিদেশি বিশেষজ্ঞ হিসেবে যোগ দিয়ে পেইচিংয়ে কর্মরত থাকা অমিত হাবিব দেশীয় সাংবাদিকতার সঙ্গে দূরত্বের কথা বিবেচনায় তা ছেড়ে দেশে ফিরে আসেন এবং ২০০৮ সালে দৈনিক সমকালে প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন।