ঢাকাবুধবার, ২০শে ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

রাজার সম্মতিতে সংসদ ভেঙে দিলেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী

বার্তা বিভাগ
অক্টোবর ১০, ২০২২ ৮:১৮ অপরাহ্ণ / ই-প্রিন্ট ই-প্রিন্ট
                                                       
                           
Link Copied!
ই-প্রিন্ট ই-প্রিন্ট                            

১৫তম সাধারণ নির্বাচনের লক্ষ্যে মালয়েশিয়ায় রাজার সম্মতিতে সংসদ ভেঙে দিলেন প্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব। দেশটির রাজা আল-সুলতান আব্দুল্লাহ রি’আয়াতউদ্দিন আল-মুস্তাফা বিল্লাহ শাহের সম্মতিতে এই সংসদ ভেঙে দেওয়া হয়।

সোমবার (১০ অক্টোবর) স্থানীয় টেলিভিশন ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচারিত এক বিশেষ ভাষণে এ ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব।

তিনি বলেন, সাবাহ, সারাওয়াক, মেলাকা ও জহুর ছাড়া মালয়েশিয়ার অন্য রাজ্য সরকার তাদের নিজ নিজ রাজ্যের বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। যাতে একযোগে ১৫তম সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

ফেডারেল সংবিধানের ৪০(২)(বি) অনুচ্ছেদ এবং ৫৫(২) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, সোমবার সংসদ ভেঙে দেওয়ার বিষয়ে সম্মত হন রাজা। যার ফলে আগামী দুই মাস অর্থাৎ ৬০ দিনের মধ্যে দেশটিতে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে জানা গেছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার নিরপেক্ষ ভোট নিশ্চিত করা এবং খরচ বাঁচানোর পাশাপাশি জনগণের যাতে কোনো সমস্যা না হয়, তা নিশ্চিত করার জন্য একই সময়ে সব স্থানে নির্বাচন পরিচালনা করা উচিত। মনোনয়ন এবং ভোটের তারিখসহ এ সংক্রান্ত অন্য বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে বলেও তিনি জানান।

এ ছাড়া রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং একটি দৃঢ়, স্থিতিশীল সরকার গঠন নিশ্চিত করার জন্য জনগণের সমর্থন পাওয়াই এখন সবচেয়ে বড় বিষয় বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি। তিনি আশা করেন, জনগণ তাদের ভোট দিয়ে এমন সরকার বেছে নেবে যারা বিভিন্ন ধর্ম, বর্ণ ও জাতিগোষ্ঠীর মালয়েশিয়ান পরিবারের ঐক্য ও সম্প্রীতি রক্ষা করবে। পাশাপাশি আগামী ২০২৩ সালের বাজেট বাস্তবায়ন পুনরায় শুরু করার মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতাও বজায় রাখতে সক্ষম হবে।

এ উদ্যোগের মাধ্যমে ২০২৩ সালের ১৬ জুলাই মাসে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিলুপ্ত হওয়ার আগেই দেশটির পার্লামেন্ট ভেঙে ১৫তম সাধারণ নির্বাচনের পথ প্রশস্ত হলো বলে মনে করছেন মালয়েশিয়ার শীর্ষ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। সূত্র: দ্য স্ট্রেট টাইমস্