মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ ইং, ৫ কার্তিক ১৪২৭ বাংলা

নীলফামারীর নিখোঁজ ৬ষ্ঠ শ্রেণির সিয়াম ঢাকায়
সুজন মহিনুল, বিশেষ প্রতিনিধি প্রকাশিত হয়েছে: ২০২০-১০-১৬ ১২:০৭:২২ /
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকায় বাংলাদেশের করোনা ভ্যাকসিন

নীলফামারীর ডিমলায় নিখোঁজের ২১দিন পর অবশেষে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র সিয়ামকেও ঢাকায় খুঁজে পেয়েছেন তার স্বজনেরা। একই ঘটনায় প্রায় নিখোঁজের ১৫ দিন পর শিশু রাকিবকে প্রথম ফিরে পেয়েছিল তার পরিবার।

জানা যায়, উপজেলার গয়াবাড়ী ইউনিয়নের শুটিবাড়ী বাজার এলাকার ব্যবসায়ী মোস্তাক খানের একমাত্র ছেলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র সিয়াম খান (১৩) ও ডাবলু মৃধার ছোট ছেলে রাকিব মৃধা (১২)সহ ওই ২জন গত ২২সেপ্টেম্বর বাড়ি থেকে খেলার কথা বলে বেড়িয়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরিবারের লোকেরা তাদের অনেক খোঁজাখুঁজি করে সন্ধান না পেয়ে পরেরদিন ২৩শে সেপ্টেম্বর ডিমলা থানায় সাধারণ ডায়েরি নং-৯৩৭,তারিখ ২৩/৯/২০২০ইং রুজু করেন। এক পর্যায়ে সিয়াম না ফিরলেও শিশু রাকিব গত ৬ অক্টোবর সকালে একাই নিজ বাড়িতে ফিরে আসে।পরে তার দেয়া আংশিক তথ্যের ভিত্তিতে সিয়ামের পরিবারের লোকেরা ঢাকায় অনেক খোঁজাখুঁজির পর কোনো সন্ধান না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে আসেন।

এদিকে সদরঘাটে সিয়াম প্রথম দিকে যে সোহাগ নামের এক ব্যক্তির হয়ে পানি বিক্রি করতেন তাকে সিয়ামের সন্ধান মিললে তার পরিবারকে খবর দিতে অনুরোধ করেন। তারই ভিত্তিতে মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সদর ঘাটের ওই সোহাগ ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশনে সিয়ামকে কুলির কাজ করতে দেখে তার পরিবারকে খবর দেন। তার পরিবার ডিমলা থেকে ঢাকায় যাবার আগেই সিয়াম সেখান থেকে আবারও যদি অন্যত্রে চলে যান এমন সঙ্কায় ঢাকায় অবস্থানরত শিশু সিয়ামের বাবা মোস্তাক খাঁনের ফুফাতে ভাই রাকিবুল্লাকে কমলাপুরে পাঠিয়ে দিলে তিনি সেখানে গিয়ে শিশু সিয়ামের সন্ধান পান। পরে বুধবার (১৪ অক্টোবর)সেই রাকিবুল্লা সিয়ামকে তার বাড়িতে সাথে করে নিয়ে আসেন।

শিশু সিয়ামের বাবা মোস্তাক খাঁন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এই প্রতিবেদককে বলেন, আমরা শিশু সিয়ামকে দেশের বিভিন্ন স্থানে খুঁজে না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়ি। এক পর্যায়ে সৃষ্টিকর্তার কৃপায় ও ঢাকা সদরঘাটের সোহাগ নামের এক ব্যক্তির সহযোগিতায় অবশেষে আমাদের সন্তানকে আমাদের বুকে ফিরে পেয়েছি আমরা। অভিযোগ অনেক থাকলেও সন্তানকে ফিরে পাওয়ায় আর কারো প্রতি আমাদের কোনো অভিযোগ নেই।

 

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ডিআইজি মিজানসহ চারজনের বিচার শুরু