মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ ইং, ৫ কার্তিক ১৪২৭ বাংলা

জুটি বেঁধে পোশাক
নিউজ ডেস্ক : প্রকাশিত হয়েছে: ২০২০-০৮-২৪ ২০:২৬:০৩ /
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকায় বাংলাদেশের করোনা ভ্যাকসিন

 একটা সময় যুগল পোশাক হতো দুই বোন বা দুই ভাইয়ের। অথবা যমজ বা পিঠাপিঠি ভাইবোন একই রকম পোশাক পরত, যেন দুজনের পোশাকি মিলটাও থাকে। এর ধারাবাহিকতায় এসেছে ‘যুগল পোশাক’। এরপর উৎসবে একটা সময়ে বাবা ছেলে বা মা মেয়ে মিলিয়ে পোশাক পরত। দম্পতিরা বাজার ঘুরে ঘুরে নিজেরা মিলিয়ে পোশাক কিনত, কিংবা দর্জির কাছে বানিয়ে নিত। এখন দেশীয় ফ্যাশন ব্র্যান্ডের ডিজাইনাররা এ কাজ সহজ করে দিয়েছেন। এতো লক ডাউনের ভেতরও ঈদ উৎসবের জন্য থেমে নেই এধরনের পোশাক অনলাইনে অর্ডার করা।

 পাঞ্জাবির সাথে শাড়ি অথবা পাঞ্জাবি আর সালোয়ার কামিজের যুগলবন্দি, বাবা-ছেলের ম্যাচিং পাঞ্জাবি আর বাবা- ছেলে-মা-মেয়ের একই রকম পোশাকের ট্রেন্ড চলছে এবারের ঈদে। কখনও একই রকম কাপড় দিয়ে, কখনো বা রং মিলিয়ে আবার কখনও একই রকম কারুকাজ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে এসব যুগল বা ম্যাচিং পোশাক।  ব্র্যান্ড ভেদে যুগল পোশাকের ক্ষেত্রে মেয়েদের জন্য রয়েছে সালোয়ার-কামিজ এবং শাড়ির পাশাপাশি কিছু কুর্তির আয়োজন। ছেলেদের জন্য আছে পাঞ্জাবি। বাজার ঘুরে দেখা গেল, এবারের যুগল পোশাকে আছে রঙ এবং নকশা এ দুইয়ের মেলবন্ধন। দু’জনের পোশাকে কখনও রঙবিন্যাস এক রেখে নকশায় আনা হয়েছে কিছু পরিবর্তন, আবার কখনও দেখা গেছে নকশা এক রেখে রঙের ক্ষেত্রে কিছু ভিন্নতা। রঙের ক্ষেত্রে ভিন্নতায় চোখে পড়েছে এক রঙের ভিন্ন শেডের ব্যবহার আবার কখনওবা রঙের সম্পূর্ণ বৈপরীত্য। সলিড কালারে নকশার বৈচিত্র্য এনেছেন অনেক নকশাকার। তবে, মাঝ বয়সী আর পরিবারের সবার কথা চিন্তা করে রং আর নকশায় পরিবর্তন আনা হয় প্রতিটি পোশাকে।

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের ৫ দলের স্কোয়াড দেখে নিন